আমার জন্মদিনের খতিয়ান!

১৯শে ডিসেম্বর তারিখে এই বসুন্ধরায় আমার আগমনের দিন। আমার বাবা-মায়ের কারণে আমি এই পৃথিবীর আলোর মুখ দেখেছি। অন্যান্য দিনগুলোর মতো এই দিনটিও শুরু হয় স্বাভাবিকভাবে। তবে বন্ধের দিন হওয়ায় একটু ব্যস্ততার মধ্যে ছিলাম আমার জন্মদিন উপলক্ষ্যে।

গতকাল অর্থাৎ ১৯শে ডিসেম্বর, শুক্রুবার দুপুরে খালা শ্বশুর বাড়িতে দাওয়াত ছিলো। দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে রওনা হয়েছিলাম, পৌঁছেছিলাম আধা ঘন্টার মধ্যে। আমার সেই খালা শ্বাশুরী আবার আগে থেকেই আমার জন্মদিনের ব্যাপারটা জানতেন। আর সে কারণে উনার বাড়িতে আমাদের পরিবারকে দাওয়াত করা!

গত ১৬ তারিখের দিকে সহ-ব্লগার শোভন ভাই ১৯শে ডিসেম্বর তারিখে ৬ষ্ঠ ব্লগ দিবস উপলক্ষ্যে সিআরবি’তে চট্টগ্রামের ব্লগারদের নিয়ে এক ঘরোয়া প্রোগ্রামের দাওয়াত দিয়েছিলেন। উনাকে কথা দিয়েছিলাম যে প্রোগ্রামে হাজিরা দিবো। এদিকে খালা শ্বাশুরীর বাড়ি থেকে বের হতে হতে ঘড়ির কাঁটা প্রায় পৌনে ৩টা। যেহেতু সন্ধ্যার মধ্যে ব্লগ দিবসের প্রোগ্রাম শেষ হয়ে যাবে আর আমি আয়োজকদের কথা দিয়ে রেখেছি তাই কিঞ্চিত টেনশনে পড়ে গিয়েছিলাম, কারণ উভয় স্থানের মাঝে দূরত্ব প্রায় ২২ কিলোমিটার।

পরিবারের সদস্যদের বাসায় নামিয়ে দিয়ে শেষ পর্যন্ত সাড়ে চারটার দিকে সিআরবি’তে ব্লগ দিবসের প্রোগ্রামে উপস্থিত হতে পেরেছিলাম। উপস্থিত ব্লগারদের সাথে আড্ডা, ব্লগের নানান বিষয় শেয়ার করা আর পরমতের প্রতি শ্রদ্ধা-অশ্রদ্ধার ব্যাপারগুলো আলোচনায় স্থান পেলো। অনুষ্ঠানের যে কেকটি কাটা হলো সেটা দিয়ে ব্লগাররা আমার জন্মদিনও উদযাপন করে নিলেন!

প্রোগ্রাম শেষ হতে হতে প্রায় সন্ধ্যা ৬টা বেজে গেলো। আগের দিন লিও সোহেল ভাই দাওয়াত দিয়ে রেখেছিলেন। উনার সাথে কিছু সময় কাটালাম উনার বাসায়।

ইতিমধ্যে আমি বাসায় চলে এসেছি। আগের দিন আমাদের বাসায় ইউনিভার্সিটি লাইফের প্রিয় সব বন্ধুদের নৈশভোজের দাওয়াত দিয়েছিলাম। আর সে মতে রাত ৮টার দিকে আমাদের বাসায় তাদের শুভাগমন। সব বন্ধুদের সাথে সীমাহীন মজা করলাম। অতীতের অনেক স্মৃতি রোমান্থন করলাম। ক্ষণিকের জন্য হলেও নস্টালজিক হলাম সবাই।

আর গতকালকে আমার জন্মদিন উপলক্ষ্যে আমার সহধর্মিনী বাসায় বিশেষ রান্নার আয়োজন করেছিলো। তার মজার সব রান্না দিয়ে বন্ধুদের আপ্যায়ন করেছিলাম মূলত।

গতকাল সারাদিন মিলে যারা ফেসবুকের ওয়ালে, ইনবক্সে, মোবাইল কলে এবং এসএমএসের মাধ্যমে আমাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তাদের সকলের প্রতি আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ। কয়েকজনের ফোন কল রিসিভ করতে পারিনি ব্যস্ততার দরুন। তাদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী।

ভালো থাকুন সবাই। :)

Advertisements

About চাটিকিয়াং রুমান

সবসময় সাধারণ থাকতে ভালোবাসি। পছন্দ করি লেখালেখি করতে, আনন্দ পাই ডাক টিকেট সংগ্রহ করতে আর ফটোগ্রাফিতে, গান গাইতেও ভালবাসি। স্বপ্ন আছে বিশ্ব ভ্রমণ করার...।।

Posted on ডিসেম্বর 20, 2014, in বিবিধ and tagged , . Bookmark the permalink. 2 টি মন্তব্য.

  1. জন্মদিনের শুভেচ্ছা রইলো। দিনটা ভালই কেটেছিল মনে হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: