Category Archives: ইতিহাস

সিন্ধু সভ্যতার খোঁজে

পৃথিবীর প্রাচীন সভ্যতা সমূহের মধ্যে একটি সিন্ধু সভ্যতা। যেটি আজকের পাকিস্তানের সিন্ধু নদ উপত্যকায় গড়ে উঠেছিল। ১৯২১ সালের আগ পর্যন্ত এই সভ্যতার কথা মানুষ জানতো না, যদিও ১৮৪২ সালে চার্লস ম্যাসন নামের ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর একজন সৈন্য তার “ন্যারেটিভস অফ ভেরিয়াস জার্নিস ইন বালোচিস্তান, আফগানিস্তান অ্যান্ড দ্য পাঞ্জাব” গ্রন্থে সিন্ধু সভ্যতার “হরপ্পা” নামক এক প্রাচীন শহরের ধ্বংসাবশেষের কথা প্রথম উল্লেখ করেন। ১৮ শতকের মাঝামাঝিতে ইস্ট ইন্ডিয়ান রেলওয়ে কোম্পানী করাচি ও লাহোরের মধ্যে রেল-লাইন স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিলে ১৮৫৬ সালে এই রেল-লাইন স্থাপনের দায়িত্ব পান ২ ব্রিটিশ ইঞ্জিনিয়ার জন এবং উইলিয়াম ব্রান্টন। দায়িত্ব পাওয়ার পর ইঞ্জিনিয়ার জন রেললাইন স্থাপনের জন্য উপযুক্ত ব্যালাস্ট Read the rest of this entry

Advertisements

ক্রিমিয়ার যুদ্ধ

১৮৫৩ সালের অক্টোবর মাসে তুরস্কের নিয়ন্ত্রিত দারদানেলিস প্রণালী দিয়ে যুদ্ধ জাহাজ চলাচলের অধিকার প্রতিষ্ঠা এবং তুরস্কের খ্রিষ্টানদের রক্ষার অজুহাতে অটোমান সাম্রাজ্যের তুর্কি এলাকায় রাশিয়া আক্রমণ চালালে ক্রিমিয়ার যুদ্ধের সূচনা হয়। রাশিয়ার সঙ্গে এই যুদ্ধ চলে তুরস্ক তথা উসমানিয় বা অটোমান সাম্রাজ্যের মিত্রশক্তি ব্রিটেন, ফ্রান্স এবং সারডিনিয়ার। ১৮৫৬ সাল পর্যন্ত এই ক্রিমিয়ার যুদ্ধ চলে।

রাশিয়া তুরস্কে আক্রমণ চালালে ব্রিটেন এবং ফ্রান্স তুরস্কের সাহায্যে এগিয়ে আসে। ১৮৫৪ সালের সেপ্টেম্বরে মিত্রশক্তি ক্রিমিয়ায় অবস্থিত রাশিয়ার সেভাস্তোপোল নৌ ঘাঁটিতে আক্রমণ চালায়। উদ্দেশ্য ছিল রাশিয়ার নৌ শক্তিকে অচল করে দেয়া। দুই মাসের মধ্যে তারা আলমা নদী, বালাকলাভা এবং ইনকারমান এই তিনটি যুদ্ধে জয় লাভ করে। বালাকলাভার যুদ্ধ খুবই সাহসী লড়াই বলে চিহ্নিত, কিন্তু লাইট ব্রিগেডের ৬৭০ জন অশ্বারোহী সৈনিক বিভ্রান্তিকর আদেশের কারণে ভুল করে সরাসরি রাশিয়ার গোলন্দাজ বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত হয়। সারডিনিয়া মিত্রজোটে যোগ না দেয়া পর্যন্ত এই যুদ্ধ ১৮৫৫ সালের বসন্তকাল অবধি বন্ধ থাকে। এরপর মিত্রবাহিনী সেভাস্তোপোল দখল করে নেয়। Read the rest of this entry

ক্লিওপেট্রা!

তৎকালীন মিশরের ইতিহাস খ্যাত টলেমি বংশের ছেলে সন্তানদের নামের শেষে ‘টলেমি’ এবং কন্যা সন্তানদের নামের শেষে ‘ক্লিওপেট্রা’ নামটি জুড়ে দেয়া হত। ইতিহাস বিখ্যাত যে ক্লিওপেট্রার নাম আমরা শুনেছি তিনি হলেন মিশর শাসনকারী টলেমি বংশের শেষ শাসক সপ্তম ক্লিওপেট্রা। দ্বাদশ টলেমির কন্যা ক্লিওপেট্রা ছিলেন খুব বুদ্ধিমতী, শিক্ষিতা এবং শিথিল নৈতিকতাসম্পন্ন নারী। তার জন্ম খ্রিষ্টপূর্ব ৬৯ সালে এবং মৃত্যু খ্রিষ্টপূর্ব ৩০ সালে।

মিশরীয় নিয়ম অনুযায়ী অষ্টাদশী ক্লিওপেট্রা তার ছোট ভাই ১০ বছর বয়সী ত্রয়োদশ টলেমিকে বিয়ে করে মিশরের রানী হন। কিন্তু তাদের দু’জনের মাঝে বিরোধ বিদ্যমান ছিল। খ্রিষ্টপূর্ব ৪৭ সালে রোমের সেনাপতি জুলিয়াস সিজার মিশরে আসলে এই বিরোধের নিষ্পত্তি ঘটে এবং সিজারের সাথে যুদ্ধে ত্রয়োদশ টলেমি মারা যান। ক্লিওপেট্রা পরিণত হন সিজারের প্রণয়িনীতে এবং সিজারের সাথে তিনি চলে যান রোমে। অবশ্য এ সময়ে তিনি নামে মাত্র বিয়ে করেছিলেন তার আরেক ছোট ভাই চতুর্দশ টলেমিকে। Read the rest of this entry

অগ্নিযুগের অগ্নিকন্যা প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের ১০১ তম জন্মবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলী এবং চট্টগ্রামবাসীর কিছু দাবী

প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার

৫মে ২০১২ ইংরেজী। ব্রিটিশ বিরোধী সংগ্রামের প্রথম নারী আত্মদানকারী বিপ্লবী প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের (৫মে ১৯১১ – ২৩সেপ্টেম্বর ১৯৩২) ১০১ তম জন্মবার্ষিকী। প্রীতিলতার নাম নতুন করে বলার কিছু না থাকলেও খুব অল্পজনই জানে তাঁর সম্পর্কে। অন্তর্মুখী, লাজুক এবং মুখচোরা স্বভাবের এই বীরকন্যার জন্ম ১৯১১ সালে ৫মে চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার ধলঘাট গ্রামে। বাবা জগবন্ধু ওয়াদ্দেদার ছিলেন চট্টগ্রাম পৌরসভা অফিসের প্রধান কেরানী। মাতা প্রতিভা ওয়াদ্দেদার ছিলেন গৃহিণী। আদর করে প্রীতিলতার মা প্রীতিলতাকে “রাণী” ডাকতেন। আর “ফুলতার” ছিলো তার ছদ্মনাম। Read the rest of this entry

নীল নদের দেশ

নীল নদের উপর নির্ভর করে গড়ে উঠেছিল প্রাচীন মিশরের সভ্যতা। প্রতি বছর নীল নদের বন্যায় পলি পড়ে উভয় কূলের মাটি উর্বর হতো, ফলে প্রচুর ফসল হতো। এ ছাড়া খালের সাহায্যে পানি নিয়ে নীল নদের দুই তীরে অঞ্চলগুলোতে চাষাবাদ করা হতো। এই আবাদি এলাকার পরিমাণ ছিল বর্তমান মিশরের জনবসতি এলাকার প্রায় সমান। Read the rest of this entry

ওয়াটারগেইট কেলেংকারি

ওয়াটারগেইট কেলেংকারির কথা অনেকে জানেন আবার অনেকে জানেন না কিংবা অনেকে এই কেলেংকারির নাম শুনেছেন কিন্তু তেমন কিছু জানা সম্ভব হয়নি। চলুন এই ওয়াটারগেইট কেলেংকারি সম্পর্কে কিছু জেনে নিই।

১৯৭২ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রচারাভিযান চলাকালে সংঘটিত হয় এক জঘন্য কেলেংকারি। যার জন্য শেষ পর্যন্ত সে দেশের প্রেসিডেন্ট (রিচার্ড নিক্সন) পদত্যাগ করতে বাধ্য হন। নির্বাচনী প্রচারের সময় ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান দল ও প্রশাসনের ৫ ব্যক্তি ওয়াশিংটন ডিসির ওয়াটার গেইট ভবনস্থ বিরোধী ডেমোক্র্যাট দলের সদর দফতরে আড়িপাতার যন্ত্র বসায়। Read the rest of this entry

ভাষা আন্দোলনঃ প্রাপ্তি ও অপ্রাপ্তি

ইতিহাস থেকে হোক আর যেভাবে হোক এ কথা সকলে জানে যে, ফেব্রুয়ারির একুশ তারিখ ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’। ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হোষ্টেলের সামনে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করার দায়ে ছাত্রদের উপর পুলিশের বর্বোরচিত গুলি বর্ষনের ফলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাষ্টার্সের ছাত্র মোহাম্মদ সালাহউদ্দীন (২৬) ঘটনাস্থলে শহীদ হন। পরে আহতদের মধ্যে ঐদিন রাত ৮টার পর রফিক (২৭), বরকত (২৫), জব্বার (৩০) সহ আরো অনেকে মারা যান। পরবর্তীতে দীর্ঘ দিন ধরে অসুস্থ থাকাবস্থায় সালাম মারা যান। এরপর থেকে সেই দিনকে আমরা প্রথম দিকে ‘শহীদ দিবস’ তারপর ‘মাতৃভাষা দিবস’ হিসেবে পালন করে আসছি। পরবর্তীতে প্রবাসীদের অক্লান্ত প্রচেষ্টার ফলে এবং বিশ্বের প্রায় ২৮টি দেশের Read the rest of this entry